Tuesday , November 21 2017
শিরোনাম
You are here: Home / দেশ / কোটালীপাড়ায় বুদ্ধিপ্রতিবন্ধী যুবতী ধর্ষণ মামলায় ৩৫ হাজার টাকা দিয়ে নিষ্পত্তির চেষ্টা

কোটালীপাড়ায় বুদ্ধিপ্রতিবন্ধী যুবতী ধর্ষণ মামলায় ৩৫ হাজার টাকা দিয়ে নিষ্পত্তির চেষ্টা

কোটালীপাড়ায় বুদ্ধিপ্রতিবন্ধী যুবতী ধর্ষণ মামলায় ৩৫ হাজার টাকা দিয়ে নিষ্পত্তির চেষ্টা
কোটালীপাড়া (গোপালগঞ্জ) প্রতিনিধি
গোপালগঞ্জের কোটালীপাড়ায় বুদ্ধিপ্রতিবন্ধী এক যুবতীকে ধর্ষণ ও গর্ভপাত ঘটানো মামলায় ৩৫ হাজার টাকা দিয়ে নিষ্পত্তির চেষ্টা চালাচ্ছে প্রভাবশালীরা। তারা ধর্ষিতার পরিবারের লোকজনকে ডেকে এনে ৩৫ হাজার টাকা দিয়ে মামল তুলে নিতে জোর চেষ্টা চালাচ্ছে। এ ঘটনারপর ধর্ষকসহ অনান্য আসামিরা বর্তমানে প্রকাশ্যে ঘুরে বেড়াচ্ছে। পুলিশ ঘটনার পর থেকে এ পর্যন্ত আসামিদের কাহাকেও গ্রেফতার করতে পারেনি। ধর্ষিতার পরিবার গরিব হওয়ায় এবং পাশে কোন অভিভাবক না থাকায় তারা দিশেহারা হয়ে পড়েছে। যার ফলে বুদ্ধি প্রতিবন্ধি যুবতী ধর্ষণ ও অবৈধ গর্ভপাত করে প্রাননাশের মত ঘটনায় ৩৫ হাজার টাকা দিয়ে প্রভাবশালীদের সহযোগীতায় আসামিরা পারপেয়ে যাচ্ছে। এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে এলাকায় সাধারনের মাঝে চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে। উল্লেখ্য উপজেলার কুশলা গ্রামের বুদ্ধি প্রতিবন্ধি এক যুবতী (৩২) প্রতিবেশি এবং প্রভাবশালী ওহাব শেখের ছেলে আ. রব শেখের বাড়িতে গৃহ পরিচারিকার কাজ নেয়। সেই সুযোগে আ. রব শেখ ঐ যুবতীকে ফুঁসলিয়ে দিনের পর দিন ধর্ষণ করে। ধর্ষণের ফলে ঐ যুবতীর গর্ভে সন্তান আসে। গর্ভের সন্তানের বয়স ৭ মাস হলে গত ১৫ জুলাই ধর্ষক আ. রব শেখ ও তার লোকজন যুবতীকে নিয়ে উপজেলা সদরে অবস্থিত সেবা ক্লিনিকে গর্ভপাত ঘটায়। এ ঘটনায় ৩০ জুলাই কোটালীপাড়া থানা নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে একটি মামলা রেকর্ড করে গোপালগঞ্জ ম্যাজিস্ট্রেট আদলতে প্রেরন করেন। মামলার আসামীরা হল- কুশলা গ্রামের ওহাব শেখের ছেলে আ. রব শেখ (৫৫) মন্টু মীরের স্ত্রী মাভিয়া বেগম (৩৫) ও বিরামের কান্দি গ্রামের গফুর শেখের ছেলে সাইফুল শেখ (৪০)। এ সব আসামিরা কিছুদিন পলাতক থাকলেও বর্তমানে তারা প্রকাশ্যে ঘুরে বেড়াচ্ছে। এ ব্যাপারে শালিসদের মধ্যে হতে কেরামত আলী হাওলাদারের কাছে জানতে চাওয়া হলে তিনি জানান, ধর্ষিতার ভাই আসলাম চৌধুরী আমার মাছের ঘের পাহারা দেয় সেই সুবাদে উপজেলা চেয়ারম্যান মুজিবুর রহমান হাওলাদার আমাকে ডেকে নিয়ে ধর্ষিতার পরিবারের জন্য ২৫ হাজার টাকা দেয়। আমি আরও কিছু দাবি করায় ৩৫ হাজার টাকা ধর্ষিতার পরিবারকে দেয়া হয়েছে। মামলা তুলে আনার প্রস্তুতি চলছে।

About admin

Comments are closed.

Scroll To Top