Saturday , September 23 2017
শিরোনাম
You are here: Home / অপরাধ / রাজধানীতে গন্তব্যে পৌঁছে দিতে চেয়ে গাড়িতে তরুণীর শ্লীলতাহানি, চালক রিমান্ডে

রাজধানীতে গন্তব্যে পৌঁছে দিতে চেয়ে গাড়িতে তরুণীর শ্লীলতাহানি, চালক রিমান্ডে

রাজধানীতে গন্তব্যে পৌঁছে দিতে চেয়ে গাড়িতে তরুণীর শ্লীলতাহানি, চালক রিমান্ডে

ডিটেকটিভ নিউজ ডেস্ক

রাজধানীর মহাখালীতে গন্তব্যে পৌঁছে দিতে চেয়ে প্রাইভেটকারে তরুণীকে শ্লীলতাহানির মামলায় গাড়িচালক ইমরানের দুদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত। গতকাল বৃহস্পতিবার ঢাকার মহানগর হাকিম প্রণব কুমার হুই রিমান্ডের আদেশ দেন। ঢাকার অপরাধ, তথ্য ও প্রসিকিউশন বিভাগের উপকমিশনার আনিসুর রহমান জানান, গত বুধবার ঢাকার মুখ্য মহানগর হাকিমের আদালতে আসামি ইমরানকে বনানী থানা পুলিশ হাজির করে পাঁচ দিনের রিমান্ডে নেওয়ার আবেদন করে। কিন্তু মামলার প্রয়োজনীয় কাগজপত্র না থাকায় ঢাকার মহানগর হাকিম নুরুন্নাহার ইয়াসমিন আসামিকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দিয়ে গতকাল বৃহস্পতিবার রিমান্ড শুনানির জন্য দিন নির্ধারণ করেন। মামলার নথি থেকে জানা যায়, ওই তরুণী গত মঙ্গলবার বেলা সোয়া ১১টার দিকে মহাখালী রেলগেটের কাছে বাসের জন্য অপেক্ষা করছিলেন। তখন একটি প্রাইভেটকার নিয়ে তাঁর সামনে থামেন ইমরান। তরুণী কোথায় যাবেন, তা জানতে চান ইমরান। বনানী যাওয়ার কথা বললে ইমরান তাঁকে গন্তব্যে পৌঁছে দেওয়ার কথা বলেন। কারে ওঠার পর সেটি গুলশান-১-এর দিকে গেলে তরুণী জানতে চান, ওদিকে কেন তাঁকে নেওয়া হচ্ছে। এ সময় ইমরান বলেন যে গুলশান-১ ঘুরে বনানী যাবেন। এর পর গুলশান-১ মোড় ঘুরে আবার মহাখালীর দিকে রওনা দেন ইমরান। সরকারি তিতুমীর কলেজের বিপরীতে গাড়ি থামান। তাঁকে পেছনের সিট থেকে পাশের সিটে ডেকে বসান ইমরান। এরপর কারের গ্লাস বন্ধ করে তরুণীর শ্লীলতাহানি করেন। এ সময় তরুণীর চিৎকারে আশপাশের লোকজন ছুটে আসেন। পরে তরুণীকে দ্রুত নামিয়ে দিয়ে গাড়ি নিয়ে আমতলীর দিকে রওনা হন ইমরান। সে সময় গাড়িতে তরুণীর মোবাইল ফোন পড়ে ছিল। তরুণী চিৎকার করতে থাকেন। আমতলী সিগন্যালে গাড়ি আটকা পড়লে ট্রাফিক পুলিশ গাড়িসহ ইমরানকে গ্রেফতার করে। এরপর বনানী থানা পুলিশের কাছে গাড়িটিসহ তাকে হস্তান্তর করা হয়। এ ঘটনায় বনানী থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনের ১০ ধারায় মামলা করা হয়েছে।

About admin

Comments are closed.

Scroll To Top