Thursday , November 23 2017
শিরোনাম
You are here: Home / র্ধষন / পুঠিয়ায় ধর্ষণের পর ভিডিও চিত্র ইন্টারনেটে ধর্ষক গ্রেফতার

পুঠিয়ায় ধর্ষণের পর ভিডিও চিত্র ইন্টারনেটে ধর্ষক গ্রেফতার

পুঠিয়ায় ধর্ষণের পর ভিডিও চিত্র ইন্টারনেটে ধর্ষক গ্রেফতার
রাজশাহী প্রতিনিধি
রাজশাহীর পুঠিয়া উপজেলায় বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে স্বামী পরিত্যক্ত এক নারীকে ধর্ষণ করে সেই ঘটনার ভিডিও ইন্টারনেটে ছড়িয়ে দেয়ার অভিযোগে আল মামুন (২৪) নামে এক কলেজছাত্রকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। গতকাল শুক্রবার সকালে রাজশাহীর পুঠিয়া থানা পুলিশের একটি দল তাকে গ্রেফতার করে। এর আগে গত বুধবার নির্যাতিত ঐ নারী নিজে বাদী হয়ে মামুনের বিরুদ্ধে ধর্ষণ এবং পর্ণগ্রাফি আইনে পুঠিয়া থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। অভিযুক্ত মামুন উপজেলার সৈয়দপুর গ্রামের সমশের আলীর ছেলে এবং নাটোরের নবাব সিরাজউদ্দৌলা সরকারি কলেজে ডিগ্রি প্রথমবর্ষের ছাত্র । পুঠিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সায়েদুর রহমান জানান, স্বামী পরিত্যক্ত নারী পুঠিয়ার সৈয়দপুরে একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে চাকরি করেন। তার বাড়ি ধোপাপাড়া গ্রামে। নারীকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ওয়ান স্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে (ওসিসি) পুলিশের হেফাজতে রাখা হয়েছে। গত বৃহস্পতিবার সেখানে তার ডাক্তারী পরীক্ষাও সম্পন্ন হয়েছে। মামলার এজাহারে ২৩ বছর বয়সী ওই নারী বলেছেন, প্রথম স্বামীর সঙ্গে ছাড়াছাড়ি হয়ে যাওয়ার পর মামুন তাকে বিয়ের প্রস্তাব দেন। তিনি ওই প্রস্তাবে রাজি হন। এরপর বিয়ের কথা বলে গত ১৫ মে মামুন তাকে রাজশাহী শহরে নিয়ে যান। কিন্তু কাজী না থাকার অজুহাতে তিনি ওই নারীকে বিয়ে না করে তার এক আত্মীয়র বাড়ি নিয়ে যান। সেখানে তাকে জোর পুর্বক ধর্ষণ করা হয়। শুধু তাই নয়, এসময় গোপনে ঘটনার ভিডিওচিত্রও ধারণ করা হয়। এরপর মামুন নারীকে বিয়ে করতে অস্বীকার করলেও তার সঙ্গে অনৈতিক সম্পর্ক রাখার জন্য চাপ দিতে থাকেন। কিন্তু ও নারী এতে রাজি না হলে ক্ষিপ্ত হয়ে গত ২৫ জুলাই মামুন ধর্ষণের ভিডিওচিত্র ইন্টারনেটে ছড়িয়ে দেন। মামলার তদন্ত কর্মকর্তা পুঠিয়া থানার উপপরিদর্শক (এসআই) প্রলয় কুমার প্রামানিক জানান, মামলা দায়েরের থেকে মামুন এলাকা ছেড়ে পালিয়ে যান। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে গতকাল সকালে তাকে নাটোর থেকে গ্রেফতার করে আনা হয়। পরে দুপুরে তাকে আদালতে তোলা হয়। এ সময় আদালতে তার সাত দিনের রিমান্ডেরও আবেদন করা হয়। তবে রিমান্ড আবেদনের শুনানি হয়নি। আদালত মামুনকে কারাগারে পাঠিয়েছেন বলেও জানান মামলার তদন্ত কর্মকর্তা। এব্যাপার পুঠিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সায়েদুর রহমান ভূইয়া  জানান, মামলা দায়েরের পর থেকে আল মামুন এলাকা ছেড়ে পালায়। এবং গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জানতে পেরে শুক্রবার ভোর ৪টার দিকে নাটোর জেলার সিংড়া উপজেলার খারাসাক্ষা গ্রামে আল মামুনের আত্মীয়ের বাড়ি থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে আল মামুন তার অপরাধ স্বীকার করেছেন।

About admin

Comments are closed.

Scroll To Top