Wednesday , September 20 2017
শিরোনাম
You are here: Home / রংপুর / অনুমোদনহীন ব্রিটিশ স্ট্যান্ডার্ড স্কুল, রংপুর বন্ধের নির্দেশ শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের

অনুমোদনহীন ব্রিটিশ স্ট্যান্ডার্ড স্কুল, রংপুর বন্ধের নির্দেশ শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের

অনুমোদনহীন ব্রিটিশ স্ট্যান্ডার্ড স্কুল, রংপুর বন্ধের নির্দেশ শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের
রংপুর ব্যুরো
রংপুরের আরকে রোড ইসলামবাগ এলাকায় অবস্থিত ব্রিটিশ স্ট্যান্ডার্ড স্কুল, রংপুর এর সকল কার্যক্রম বন্ধের নির্দেশনা দিয়েছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। এছাড়াও জড়িতদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করারও নির্দেশ দিয়েছে। তবে গতকাল পর্যন্ত স্কুলটি বন্ধের ব্যাপারে কোন উদ্যোগ নেয়নি জেলা প্রশাসন।
শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম সচিব সালমা জাহান স্বাক্ষরিত রংপুর জেলা প্রশাসককে দেয়া এক চিঠিতে বলা হয়েছে (স্মারক নং-৩৭.০০.০০০.০৭২.৩৯.০০৮.১৬.২৪০) ব্রিটিশ স্ট্যান্ডার্ড স্কুল, রংপুর সরকার কর্তৃক অনুমোদিত নয় এবং প্রতিষ্ঠানটির বিরুদ্ধে বিভিন্ন অভিযোগ রয়েছে যা প্রমাণিত। সরকারের অনুমোদন ব্যতিরেকে কোন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান পরিচালনার সুযোগ নেই। চিঠিতে রংপুর বিভাগীয় শহরে অবস্থিত ব্রিটিশ স্টান্ডার্ড স্কুল, রংপুর অবিলম্বে বন্ধসহ যে সকল ব্যক্তি উক্ত প্রতিষ্ঠান পরিচালনায় প্রতারণা করেছে তাদের বিরুদ্ধে ফৌজদারী কার্যবিধি অনুযায়ী মামলার প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করে আগামী ২০ এপ্রিলের মধ্যে মন্ত্রণালয়ে পাঠানোর নির্দেশ দেয়া হয়েছে। গত ২৭ মার্চ চিঠিটি রংপুর জেলা প্রশাসককে দেয়া হলেও গতকাল মঙ্গলবার পর্যন্ত এই প্রতিষ্ঠানটি বন্ধ করার দৃশ্যতঃ কোন ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়নি। তবে এ ব্যাপারে রংপুরের ভারপ্রাপ্ত জেলা প্রশাসক সুলতানা পারভীন জানান, বিষয়টি আমি জানি। চিঠির আলোকে করণীয় সকল ব্যবস্থা নেয়া হবে।
অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) রুহুল আমীন জানান, আমরা ওই স্কুলটির বিরুদ্ধে তদন্ত করে মন্ত্রণালয়ে রিপোর্ট দিয়েছি। মন্ত্রণালয় হতে যে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে তা আমরা শীঘ্রই বাস্তবায়ন করবো। স্কুলটি বন্ধ করে দেয়া হবে। মামলারও প্রস্তুতি নেয়া হচ্ছে।
ওই প্রতিষ্ঠানটির বিরুদ্ধে প্রমাণিত অভিযোগসমূহে বলা হয়, স্কুলটি ঢাকার ব্রিটিশ স্ট্যান্ডার্ড স্কুলের সাথে সম্পৃক্ততা না থাকলেও ওই স্কুলের ১২তম শাখা প্রতিষ্ঠার কথা বলে প্রতারণা করেছে। এমন কি ঢাকার ব্রিটিশ স্ট্যান্ডার্ড স্কুলের ওয়েবসাইট ব্যবহার করেও চরম প্রতারণার আশ্রয় নিয়েছে। স্কুলটির প্রতিষ্ঠাতা জিল্লুর রহমান, মাহফুজ কবীর সৌরভ এবং এডমিন অফিসার জহির রায়হান ও নুরুজ্জামান নূর প্রতারণার মাধ্যমে ছাত্রভর্তির নামে প্রত্যেকের কাছ থেকে ১০ থেকে ২৫ হাজার টাকা করে প্রায় ২ কোটি টাকা রসিদমূলে হাতিয়ে নিয়ে আত্মসাত করেছে। এছাড়াও শিক্ষক নিয়োগের নামে দু’দফা বিজ্ঞপ্তি দিয়ে প্রায় ৪ শতাধিক শিক্ষক প্রার্থীদের কাছ থেকে ৫ থেকে ৭শ’ টাকার ব্যাংক ড্রাফট রসিদমূলে গ্রহণ করে প্রায় ৩ হতে ৪ লাখ টাকা এবং নিয়োগকৃত ২০ জন শিক্ষকের কাছ থেকে ৬০ লাখ টাকা গ্রহণ করে তা আত্মসাত করেছে। এছাড়া শিক্ষক নিয়োগের ক্ষেত্রে যে সকল শিক্ষক এককালীন ৩ লাখ টাকা দিতে ব্যর্থ হয়েছিলেন, প্রাথমিকভাবে ৩ মাস পন্ডশ্রম দিলেও তাদেরকে বিতাড়িত করা হয়েছে। এর  মধ্যে সহকারী শিক্ষক খায়রুল ইসলাম অন্যতম। প্রমাণিত অভিযোগে বলা হয়, মাহফুজ কবীর ব্যারিস্টার নয়। তিনি একজন উচ্চ মাধ্যমিক সনদধারী ব্যক্তি। প্রমাণিত অভিযোগে আরও বলা হয়, স্কুলটি ব্রিটিশ স্ট্যান্ডার্ড এর সিলেবাস, শিক্ষাক্রম, ড্রেসকোর্ড, পরিচালনা পর্ষদ ও লোগো ব্যবহার করেও প্রতারণা করেছে। বিষয়টি জেলা প্রশাসনের তদন্তে প্রমাণিত হয়েছে।
এদিকে ওই প্রতিষ্ঠানটি বন্ধের বিষয়ে রংপুর জেলা প্রশাসনের তদন্তের খবরা-খবর ছড়িয়ে পড়লে অনেক অভিভাবক তাদের কোমলমতি সন্তানদের অন্যত্র ভীর্তর ব্যবস্থা করাচ্ছেন। এ ব্যাপারে স্কুলটির প্রশাসনিক কর্মকর্তা জহির রায়হানের সাথে বার বার ফোন করেও তাকে পাওয়া যায়নি।

About admin

Comments are closed.

Scroll To Top