Wednesday , December 13 2017
শিরোনাম
You are here: Home / জাতীয় / প্রতিবাদে গাইবান্ধায় মানববন্ধন কুন্দেরপাড়া স্কুলে অগ্নিসংযোগের প্রধান সন্দেহভাজন গ্রেফতার

প্রতিবাদে গাইবান্ধায় মানববন্ধন কুন্দেরপাড়া স্কুলে অগ্নিসংযোগের প্রধান সন্দেহভাজন গ্রেফতার

প্রতিবাদে গাইবান্ধায় মানববন্ধন
কুন্দেরপাড়া স্কুলে অগ্নিসংযোগের প্রধান সন্দেহভাজন গ্রেফতার
গোবিন্দগঞ্জ (গাইবান্ধা) প্রতিনিধি
Gaibandha School Fire Floup-04 (29.01333সন্ত্রাসী নাশকতায় সদর উপজেলার কামারজানি ইউনিয়নের কুন্দেরপাড়া গণউন্নয়ন একাডেমি বিদ্যালয় অগ্নিসংযোগ করে ভস্মীভূত করার প্রতিবাদে গাইবান্ধা শহরের ডিবি রোডে গতকাল রোববার মুখে কালো কাপড় বেঁধে এক মানববন্ধন কর্মসূচি পালিত হয়।
মানববন্ধন চলাকালে বক্তব্য রাখেন গাইবান্ধা প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক ও মানবাধিকার ফোরামের আহবায়ক আবু জাফর সাবু, উপাধ্যক্ষ জহুরুল কাইয়ুম, সিপিবি সভাপতি মিহির ঘোষ, জাসদের সাধারণ সম্পাদক গোলাম মারুফ মনা, জিয়াউল হক জনি, মানবাধিকার ফোরামের কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি কাজী আব্দুল খালেক মানবাধিকার কর্মী হাসিনা জোয়ারদার, আব্দুর রউফ, বিপুল কুমার দাস, গণউন্নয়ন কেন্দ্রের আবু সাঈদ তুহিন, বিদ্যালয় শিক্ষার্থী শাপলা আকতার আব্দুল জলিল, মিজান প্রমুখ। বক্তারা এই নাশকতার সাথে জড়িত সন্ত্রাসীদের খুঁজে বের করে আইনের আওতায় এনে অবিলম্বে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানান। সেই সাথে চরাঞ্চলে সুবিধাবঞ্চিত শিক্ষার্থীদের শিক্ষার উন্নয়ন নিশ্চিত করার লক্ষ্যে কুন্দেরপাড়া গণ উন্নয়ন একাডেমি বিদ্যালয়কে এমপিওভূক্ত করা এবং সরকারি আর্থিক সহায়তায় জরুরি ভিত্তিতে বিদ্যালয়ের একাডেমিক ভবন নির্মাণসহ আসবাবপত্র, লাইব্রেরির বই-পুস্তক, ও শিক্ষা উপকরণের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণেরও দাবি জানানো হয়। তদুপরি যে সমস্ত শিক্ষার্থীর সনদপত্র পুড়ে গেছে, তাদের সনদপত্রের ব্যবস্থা করার জন্য বোর্ড কর্তৃপক্ষের নিকট দাবি জানানো হয়।
জেলা মানবাধিকার ফোরাম, জেলা মানবাধিকার সংরক্ষণ পরিষদ, জেলা মানবাধিকার নারী সমাজ, জেলা মানবাধিকার নাট্য পরিষদ, মানবাধিকার সামাজিক উদ্যোক্তা দল, জেলা পারিবারিক নির্যাতন প্রতিরোধ জোট যৌথভাবে এই মানববন্ধন কর্মসূচির আয়োজন করে। বিভিন্ন সংগঠনের বিপুলসংখ্যক সদস্য, রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ এবং শিক্ষার্থীরা এই মানববন্ধনে অংশ নেয়।
এদিকে অগ্নিকা-ের ঘটনায় দায়ের করা সন্দেহভাজন হিসেবে রনজু নামের এক ব্যক্তিকে গতকাল রোববার সন্ধ্যায় গ্রেফতার করেছে পুলিশ। রনজু একই ইউনিয়নের পারদিয়ারা গ্রামের মজিবর রহমানের ছেলে।
এদিকে পুড়ে যাওয়া স্কুলটি রোববার পরিদর্শন করেছেন জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আতাউর রহমান আতা, জেলা প্রশাসক মো. আবদুস সামাদ, পুলিশ সুপার মো. আশরাফুল ইসলাম, সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আলেয়া জাহান ফেরদৌস, থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) একেএম মেহেদি হাসানসহ বিভিন্ন দপ্তরের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাবৃন্দ।
এসময় তারা নাশকতার আগুনে পুড়ে যাওয়া স্কুলটি পরিদর্শন করে দুঃখ প্রকাশ করেন এবং শিক্ষার্থীদের পাঠদান চালু রাখতে প্রশাসনের পাশাপাশি সকল প্রতিষ্ঠান ও ব্যক্তিদের এগিয়ে আসার আহবান জানান।

About admin

Comments are closed.

Scroll To Top