Wednesday , December 13 2017
শিরোনাম
You are here: Home / রাজনীতি / ঢাবি’র প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর স্মরণিকায় ইতিহাস বিকৃতি: তদন্তে কমিটি

ঢাবি’র প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর স্মরণিকায় ইতিহাস বিকৃতি: তদন্তে কমিটি

ডিটেকটিভ নিউজ ডেস্ক

প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর স্মরণিকায় সাবেক সামরিক শাসক জিয়াউর রহমানকে বাংলাদেশের ‘প্রথম রাষ্ট্রপতি’ লেখা এবং তার প্রতিবাদে বিক্ষোভের মধ্যে উপাচার্যের গাড়ি ভাঙচুরের তিন সপ্তাহ পর তদন্ত কমিটি করেছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় (ঢাবি) কর্তৃপক্ষ। গত বৃহস্পতিবার বিশ্ববিদ্যালয়ের সিন্ডিকেট সভায় পাঁচ সদস্যের এই তদন্ত কমিটি গঠন করা হয় বলে শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক এ এস এম মাকসুদ কামাল জানান। তিনি বলেন, জিয়াউর রহমানকে প্রথম রাষ্ট্রপতি লেখা ও উপাচার্যের গাড়ি ভাঙচুরের ঘটনা খতিয়ে দেখতে এ কমিটি করা হয়েছে। কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক কামাল উদ্দিনকে প্রধান করে গঠিত এ কমিটির অন্য সদস্যরা হলেন- অধ্যাপক নাজমা শাহীন, অধ্যাপক এ এস এম মাকসুদ কামাল, অ্যাডভোকেট এ এফ এম মেজবাউদ্দিন ও এস এম বাহালুল মজনুন। গত ১ জুলাই ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ৯৫তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর স্মরণিকায় ‘স্মৃতি অম্লান’ শিরোনামে বিশ্ববিদ্যালয়ের হলগুলোর বর্ণনা দিতে গিয়ে জিয়াউর রহমান হলের ক্ষেত্রে জেনারেল জিয়াকে ‘বাংলাদেশের প্রথম রাষ্ট্রপতি, সাবেক সেনাপ্রধান ও মুক্তিযোদ্ধা’ হিসেবে বর্ণনা করা হয়। আর বঙ্গবন্ধু হল ও বঙ্গবন্ধু টাওয়ারের ইতিহাস তুলে ধরতে গিয়ে স্মরণিকার অষ্টাদশ পৃষ্ঠায় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান সম্পর্কে লেখা হয়েছে, তিনি বাংলাদেশে অন্যতম প্রধান রাজনৈতিক নেতা, যিনি পূর্ব পাকিস্তান থেকে বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠার সংগ্রামে অন্যতম পুরোধা ব্যক্তিত্ব এবং বাংলাদেশের জাতির জনক হিসেবে বিবেচিত। ওই ক্রোড়পত্রের প্রকাশনার দায়িত্বে ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের তৎকালীন রেজিস্ট্রার (ভারপ্রাপ্ত) রেজাউর রহমান। স্মরণিকা প্রকাশিত হওয়ার পর ক্যাম্পাসে বিক্ষোভের এক পর্যায়ে ছাত্রলীগ কর্মীরা উপাচার্যের বাংলোর সামনে তার গাড়ি ভাংচুর করে। বিক্ষোভ-ভাংচুরের মধ্যে ওইদিনই রেজাউর রহমানকে অব্যাহতি দেওয়া হয়। প্রত্যাহার করে নেওয়া হয় ওই স্মরণিকা। বিএনপির আমলে উপাচার্য পদে নিয়োগ পাওয়া অধ্যাপক এসএমএ ফায়েজের সময়ে ২০০৭ সালে ভারপ্রাপ্ত হিসাবে রেজিস্ট্রার পদে আসেন সৈয়দ রেজাউর রহমান। ক্ষমতার পট পরিবর্তনে ২০০৯ সালে ক্ষমতায় আসে আওয়ামী লীগ। ওই বছর ১৫ জানুয়ারি উপাচার্য পদে আসেন অধ্যাপক আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক। ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার পদে রেজাউরের ওপরই তিনি আস্থা রাখেন। অবশ্য পুরোপুরি রেজিস্ট্রারের দায়িত্ব তার আর পাওয়া হয়নি।

Scroll To Top